শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
টাংগাইল বন বিভাগের দোখলা সদর বন বীটে সুফল প্রকল্পে হরিলুট আগ্রাবাদ ফরেস্ট কলোনী বালিকা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হলেন মোজাম্মেল হক শাহ চৌধুরী ফৌজদারহাট বিট কাম চেক স্টেশন এর নির্মানাধীন অফিসের চলমান কাজ পরিদর্শন নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ ২০৪১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবে: শেখ সেলিম সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের করমজল ইকোট্যুরিজম কেন্দ্র চলছে সীমাহীন অনিয়ম এলজিইডির কুমিল্লা জেলা প্রকল্পের পিডি শরীফ হোসেনের অনিয়ম যুবলীগে পদ পেতে উপঢৌকন দিতে হবে না: পরশ নির্বাচন যুদ্ধক্ষেত্র নয়, পেশি শক্তির মানসিকতা পরিহার করতে হবে: সিইসি যুদ্ধ না, আমরা শান্তি চাই : প্রধানমন্ত্রী

বরিশালে উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে ইউএনও’র বাসভবনে ভাঙচুর, পুলিশ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ

বরিশাল প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ১৮ আগস্ট, ২০২১
  • ৭৬ পাঠক পড়েছে

বরিশাল সিটিতে অবৈধ ব্যানার, ফেস্টুন ও বিলবোর্ড উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বাসভবনে হামলার ঘটনা ঘটেছে। উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে ইউএনও’র বাসভবনে ভাঙচুর, গুলিবিদ্ধ কয়েকজন । এসময় বাসভবনের নিরাপত্তায় থাকা আনসার সদস্যদের সঙ্গে সিটি করপোরেশন কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ বাধে। এতে চার পুলিশ ও আনসার সদস্যসহ আহত হন অর্ধশত। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধও হন বেশ কয়েকজন।

এ ঘটনায় মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবুসহ কয়েজনকে আটক করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অভিযোগ, প্রশাসনিক এলাকায় সিটি করপোরেশনের উচ্ছেদ অভিযান না করতে অনুরোধ করার পরও তারা বাসভবনে ঢুকে ভাঙচুর চালায়। এদিকে, সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর দাবি, এ হামলার ঘটনা সিটি করপোরেশনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

বুধবার (১৮ আগস্ট) রাতে বরিশাল সিটি করপোরেশনের লোকজন নগরীতে অবৈধ বিলবোর্ড উচ্ছেদ অভিযানে নামেন। তারা উচ্ছেদ করতে করতে এক সময় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবন এলাকায় ঢুকে পড়েন।

এ সময় ইউএনও অফিসের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যরা তাদের পরিচয় জানতে চান। এনিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, বিষয়টি তিনি জানার পর সিটি করপোরেশনের লোকজনকে অনুরোধ করেন, নিরাপত্তার স্বার্থে প্রশাসনিক এলাকায় রাতে উচ্ছেদ অভিযান না চালাতে। কিন্তু তারা তা উপেক্ষা করে ইউএনওর বাসভবনে ঢুকে হামলা করলে, আনসার সদস্যদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে।

পরে সিটি করপোরেশনের লোকজনের সঙ্গে যোগ দেয় স্থানীয় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরাও। তারা ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও কক্ষের বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর করে বলে জানান ইউএনও।

তিনি বলেন, একজন পরিচয় দিলেন মাহমুদ হাসান বাবু, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। পাশে আরও ৫০-৬০ জন ছেলে মেয়ে ছিল। কয়েকজন খুবই উচ্চমাত্রায় অশোভন আচরণ করছিলেন। কেউ কেউ অকট্য ভাষায় গালি দিয়েছেন। আমার ঘরের বারান্দা পর্যন্ত তারা চলে এসেছেন।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে হামলাকারীদের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এ ঘটনায় দুই পুলিশ ও দুই আনসার সদস্য গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন অর্ধশত। বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা।

শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মো. মফিজুল ইসলাম বলেন, গোলাগুলি হয়েছে। সবাই রক্তাক্ত অবস্থায় আমাদের জরুরি বিভাগে এসেছেন। সবাই খুবই আহত।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা দাবি করেন, ইউএনও বাসভবনের দরজায় ঢুকতে গেলেই আনসার সদস্যরা গুলি চালায়।

তারা বলছেন, আমরা গেটের সামনে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের উপর গুলি বর্ষণ করেন আনসার সদস্যরা।

সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, সিটি করপোরেশন একটা সরকারি প্রতিষ্ঠান। উনার বাসায় কেন হামলা চালাবে? তার সঙ্গে কি ব্যক্তিগত কোনো শত্রুতা আছে? বাধা তো দিয়েছেন তিনি! এটা আসলে সিটি করপোরেশনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা। ঘটনা তদন্ত করে হামলায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনার কথা জানায় তারা।

বরিশাল মেট্রোপলিটনের পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান বলেন, হাঙ্গামা অবস্থায় আমরা দেখেছি। এখানে আনসার সদস্য যারা ছিলেন, তারাও খুবই আহত হয়েছেন। সার্বিকভাবে এখানকার পরিস্থিতি খারাপ। তাই আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ছত্রভঙ্গ করি।

জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন হায়দার বলেন, এ ঘটনা নিয়ে আমরা সঠিকভাকে পর্যালোচনা করবো। যারা অন্যায় করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঘটনাস্থল ও আশপাশের এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 

 

নিউজটি শেয়ার করে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © 2019-2020 । দৈনিক আজকের সংবাদ
Design and Developed by ThemesBazar.Com
SheraWeb.Com_2580