বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ১২:২০ অপরাহ্ন

ট্যুর অপারেটর পরিচালনা করতে সরকারের অনুমোদন লাগবে

নিউজ ডেক্স:
  • প্রকাশিত সময় : শনিবার, ৩ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৫ পাঠক পড়েছে

বাংলাদেশের পর্যটন খাত একটি সম্ভাবনাময় শিল্প। বর্তমান বাংলাদেশে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ট্যুর অপারেটরগণ অন্তর্মুখী ও বিদেশগামী ট্যুর পরিচালনা করে থাকেন। দেশের পর্যটন শিল্প বিকাশের লক্ষ্যে সুপরিকল্পিত ট্যুর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইডের কার্যক্রম আইনের আওতায় পরিচালনা এবং পর্যটকদের স্বার্থ সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে ‘বাংলাদেশ ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড (নিবন্ধন ও পরিচালনা) আইন’ ২০২১ সংসদে উত্থাপন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

শনিবার (০৩ এপ্রিল) স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে বিলটি উত্থাপন করা হয়। যদিও বিলের বিরোধীতা করে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম। তিনি বলেন, এতে টোয়াবের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাবে। তবে তার সেই বক্তব্যের পক্ষে জনমত যাচাই করার প্রস্তাব কণ্ঠভোটে দিলে তা নাকোচ হয়ে যায়। এরপর স্পিকারের অনুমতি নিয়ে বিলটি উত্থাপন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

বিলটি অধিকতর যাচাই বাছাই করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করা হয়েছে। সংসদীয় কমিটিতে যাচাই বাছাই করে আগামী এক মাসের মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের জন্য সময় দেওয়া হয়েছে।

‘বাংলাদেশ ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড (নিবন্ধন ও পরিচালনা) বিল’-২০২১ এর নিবন্ধন সনদ ব্যতীত ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড পরিচালনার ওপর নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত বিধিতে বলা হয়েছে (১) ধারা ৭ এর বিধান অনুসারে নিবন্ধন সনদ ব্যতীত কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পর্যটকদের জন্য ভ্রমণসেবা সংশ্লিষ্ট আবাসন, আহার বা আপ্যায়ন, পরিবহন, পর্যটন আকর্ষণ সংশ্লিষ্ট স্থান পরিদর্শন, পরিভ্রমণ ও অনূরূপ অন্যান্য পর্যটন সুবিধা অন্তর্ভূক্ত করে দলভিত্তিক বা একক ট্যুর আয়োজন ও পরিচালনা বা ট্যুর গাইড হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারবে না। (২) বিদেশি কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড এর কার্যক্রম পরিচালনা করতে চাইলে সরকারের পূর্বানুমতি লাগবে।

বর্তমানে যেসকল ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড কার্যক্রম পরিচালনা করছেন তাদের বিষয়ে বলা হয়েছে- বিদ্যমান অনিবন্ধিত ট্যুর অপারেটরগণকে এই আইন কার্যকর হবার ৩ মাসের মধ্যে নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের নিকট ধারা ৫ এর বিধান অনুযায়ী আবেদনপূর্বক ধারা ৭ এর বিধান অনুসারে নিবন্ধন সনদ গ্রহণ করতে হবে।

ধারা ৮ এর-নিবন্ধন সনদের মেয়াদ ও নবায়ন সংক্রান্ত বিধিতে বলা হয়েছে-(১) নিবন্ধন সনদের মেয়াদ হবে উহা প্রদানের তারিখ হতে ৩ বছর এবং উহা নবায়নযোগ্য। (২) নিবন্ধন সনদের মেয়াদ শেষ হবার কমপক্ষে ৩ মাস আগে নির্ধারিত পদ্ধতি ও ফি প্রদান সাপেক্ষে নিবন্ধন নবায়নের আবেদন করতে হবে।

ধারা ১২ তে অপরাধ ও দণ্ড সম্পর্কে বলা হয়েছে- কোন ব্যক্তি এই আইনের কোনো বিধান লঙ্ঘন করলে উহা অপরাধ হবে এবং তজ্জন্য তিনি অনধিক ৬ মাস কারাদণ্ড এবং অনধিক দুই লাখ টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের পর্যটন খাত একটি সম্ভাবনাময় শিল্প। বর্তমান বাংলাদেশে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ট্যুর অপারেটরগণ অন্তর্মুখী ও বিদেশগামী ট্যুর পরিচালনা করে থাকেন। এসকল অপরাটেরদের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য দেশে প্রচলিত কোন আইন না থাকায় অনেক সময় পর্যটকগণ তাদের কাঙ্ক্ষিত সেবা থেকে বঞ্চিত হয়ে থাকেন। দেশের পর্যটন শিল্প বিকাশের লক্ষ্যে সুপরিকল্পিত ট্যুর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড এর কার্যক্রম আইনের আওতায় পরিচালনা এবং পর্যটকদের স্বার্থ সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইড (নিবন্ধন ও পরিচালনা) আইন ২০২১ প্রণয়ন করা প্রয়োজন। আইনটি অনুমোদিত হলে পর্যটকগণদের কাঙ্ক্ষিত সেবা প্রাপ্তি সহজতর হবে।

পর্যটকদের স্বার্থ সংরক্ষণসহ পর্যটন শিল্প বিকাশের লক্ষ্যে ট্যুর অপারেটর ও ট্যুর গাইডের কার্যক্রম সুষ্ঠু ও সুচারুভাবে আইনের আওতায় পরিচালনা করা সম্ভব হবে। পাশাপাশি সরকারের রাজস্ব বৃদ্ধি পাবে।

 

 

নিউজটি শেয়ার করে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © 2019-2020 । দৈনিক আজকের সংবাদ
Design and Developed by ThemesBazar.Com
SheraWeb.Com_2580