শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
টাংগাইল বন বিভাগের দোখলা সদর বন বীটে সুফল প্রকল্পে হরিলুট আগ্রাবাদ ফরেস্ট কলোনী বালিকা বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হলেন মোজাম্মেল হক শাহ চৌধুরী ফৌজদারহাট বিট কাম চেক স্টেশন এর নির্মানাধীন অফিসের চলমান কাজ পরিদর্শন নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ ২০৪১ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবে: শেখ সেলিম সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের করমজল ইকোট্যুরিজম কেন্দ্র চলছে সীমাহীন অনিয়ম এলজিইডির কুমিল্লা জেলা প্রকল্পের পিডি শরীফ হোসেনের অনিয়ম যুবলীগে পদ পেতে উপঢৌকন দিতে হবে না: পরশ নির্বাচন যুদ্ধক্ষেত্র নয়, পেশি শক্তির মানসিকতা পরিহার করতে হবে: সিইসি যুদ্ধ না, আমরা শান্তি চাই : প্রধানমন্ত্রী

প্রেষণে এডিজি পদায়নে পদোন্নতি থেকে বঞ্চিত হওয়ার শঙ্কা ডিআইপির কর্মকর্তাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • প্রকাশিত সময় : রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১
  • ১১১ পাঠক পড়েছে
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে গত ১৪ জুলাই প্রশাসন ক্যাডারের একজন যুগ্ম সচিবকে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক পদে প্রেষণে পদায়নের আদেশ জারী করা হয়েছে।কিন্তু অতিরিক্ত মহাপরিচালক পদে প্রেষণে অন্য কোন দপ্তর বা ক্যাডার থেকে কর্মকর্তা নিয়োগ করা হলে অধিদপ্তরের আটটি ধাপের কর্মকর্তা, কর্মচারীগণ পদোন্নতির সুযোগ হতে বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা করছেন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।
এমন কি তাদের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হবে এবং তারা কর্মস্পৃহা হারিয়ে ফেলবে।এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। আরপি ও এমআরভি এবং ই-পাসপোর্ট ও ই-ভিসা সংক্রান্ত কার্যক্রমটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর বিধায় প্রেষণে নিয়োজিত কর্মকর্তার এমআরপি,এমআরভি ও ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম সম্পর্কে পূর্বাভিজ্ঞতা না থাকার ফলে উক্ত কার্যক্রম পরিচালনায় দীর্ঘসূত্রিতা ও জটিলতা সৃষ্টি হবে। যার ফলে জনসেবা ও জনস্বার্থ বিঘ্নিত হবে। ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে,সাত জন পরিচালক দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে অতিরিক্ত মহাপরিচলক পদে পদোন্নতির যোগ্যতা অর্জন করা সত্বেও পদ স্বল্পতার কারণে পদোন্নতি পাচ্ছেন না।
এ অবস্থায় অতিরিক্ত মহাপরিচালক পদে অন্য দপ্তর হতে প্রেষণে পদায়ন কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে মনে করছেন ডিআইপির কর্মকর্তারা।মন্ত্রণালয়ের আদেশ কার্যকর হলে ওই জন পরিচালক ছাড়াও পরবর্তী আটটি ধাপের কর্মকর্তা-কর্মচারিগণ তাদের প্রাপ্য পদোন্নতির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে যাদের প্রত্যেকে তিন থেকে বারো বছর পূর্বে পরবর্তী উচ্চতর পদে পদোন্নতির যোগ্যতা অর্জন করেছেন। বিষয়াদি বিবেচনাপূর্বক প্রেষণে নিয়োগের আদেশটি বাতিলপূর্বক অধিদপ্তরের দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ও যোগ্য পরিচালকগণের মধ্যে হতে অতিরিক্ত মহাপরিচালক পদে পদোন্নতি প্রদান এবং পরবর্তী ধাপসমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারিগণের পদোন্নতির সুযোগ অব্যাহত রাখা প্রয়োজন বলে সূত্র মনে করে। ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর তথ্যমতে, ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর বাংলাদেশি নাগরিকগণের অনুকূলে পাসপোর্ট ইস্যু, বিদেশি নাগরিকের ভিসা প্রদান এবং ইমিগ্রেশন সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম সম্পন্ন করে।
এ কাজ সম্পাদনের জন্য দেশের অভ্যন্তরে ৬৯টি বিভাগীয়,আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়,পাসপোর্টের ডাটা সেন্টার, ডিজাস্টার রিকভারী সেন্টার পরিচালনা এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সহ অন্যান্য দপ্তর,সংস্থার সাথে সমন্বয় সাধন করে।এছাড়াও অধিদপ্তরের কাজের পরিমান বৃদ্ধি,কাজের ধরণের পরিবর্তন এবং দীর্ঘদিন একই পদে দায়িত্ব পালনকারী পরিচালকগণের পদোন্নতির সুযোগ সৃষ্টির জন্য গত ২০১২ সালে অতিরিক্ত মহাপরিচালকের দুইটি পদ সৃষ্টি করা হয়েছিল। পাসপোর্ট,ভিসা ও ইমিগ্রেশন বিশেষায়িত ধরণের কাজ হওয়ায় দীর্ঘদিন এতদসংক্রান্ত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জিত হয়।অত্র অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক পদে একজন প্রবেশনার হিসেবে যোগদান করে জব রোটেশন অনুসারে পদোন্নতির মাধ্যমে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে কাঙ্খিত অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা অর্জন করে।
এ প্রক্রিয়া ব্যহত হলে অধিদপ্তরে দক্ষ জনবলের সংকট সৃষ্টি হবে। এর ফলে সেবার মান হ্রাস পাবে এবং জনস্বার্থ ক্ষুন্ন হবে।এ অধিদপ্তরে দায়িত্বপালনকালে একজন কর্মকর্তাকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর এমআরপি ও এমআরভি’র কার্যক্রম তদারকি ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং সর্বাধুনিক ই-পাসপোর্ট প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগিতা এবং ই-পাসপোর্টের কারিগরি বিষয়ের সাথে অধিদপ্তরের চলমান কার্যপদ্ধতির সমন্বয় সাধনসহ অধীনস্ত কর্মকর্তা,কর্মচারীদের সার্বিক কার্যক্রম তদারকি করতে হয়। সকল কর্মকর্তা,কর্মচারীদের নিকট থেকে সর্বোচ্চ ও মানসম্মত কাজ পেতে হলে তাদের সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ পূর্ব ধারণা এবং তাদের সাথে কাজ করার পূর্বাভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন। কাজের ধরণ ও গুরুত্ব বিবেচনায় অতিরিক্ত মহাপরিচালকের পদ সবসময় অধিদপ্তরের পরিচালকগণের মধ্য থেকে পদোন্নতির মাধ্যমে পূরণ করা বাঞ্ছনীয় বলে মনে করছেন ডিআইপির বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তারা।

নিউজটি শেয়ার করে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © 2019-2020 । দৈনিক আজকের সংবাদ
Design and Developed by ThemesBazar.Com
SheraWeb.Com_2580