বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
টি-টোয়েন্টির অলরাউন্ড শ্রেষ্ঠত্ব ফিরে ফেলেন সাকিব এসএসসি পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর শুরু ‘বিএনপি নেতাদের নির্বাচন থেকে সরানোর ব্যবস্থা করছে সরকার’ পাটুরিয়া ফেরিঘাটে ডুবে যাওয়া ফেরিতে উদ্ধার অভিযান চলছে ইনফিনিক্সের সর্বশেষ স্মার্টফোন ‘হট ১১এস’এখন দেশের বাজারে জ্বালানির দামের সঙ্গে বাড়ছে খাদ্যশস্যের দামও : অর্থমন্ত্রী ‘এক সপ্তাহের মধ্যেই করোনা টিকা পাবে স্কুল শিক্ষার্থীরা’ সেনাবাহিনীকে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর রাঙামাটিতে নির্বাচনি সহিংসতায় ইউপি সদস্য নিহত বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে মালয়েশীয় উদ্যোক্তাদের আহ্বান টেলিযোগাযোগমন্ত্রীর

মিয়ানমারে আরও ২ বিক্ষোভকারী নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশিত সময় : শনিবার, ১৩ মার্চ, ২০২১
  • ৫৪ পাঠক পড়েছে

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে আবারও ঝরল প্রাণ। শুক্রবার রাতে পুলিশের গুলিতে আরও দুই বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত শনিবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে আটকদের মুক্তির দাবিতে শুক্রবার রাতে ইয়াঙ্গুনের থারকেতা জেলায় পুলিশ স্টেশনের বাইরে অবস্থান নেন বিক্ষোভকারীরা। এসময় পুলিশের ছোড়া গুলিতে দুইজন নিহত হন।

১৯৮৮ সালে সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে এক শিক্ষার্থী নিহত হন। তার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সেসময় সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে গণজাগরণ শুরু হয়েছিল। ফোন মাও নামে ওই শিক্ষার্থীর মৃত্যুবার্ষিকীতে শনিবার আন্দোলনকারীরা আরও বড় বিক্ষোভের ডাক দিয়েছেন।

এই বিক্ষোভের ডাক এলো যখন যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া এবং জাপানের নেতারা মিয়ানমারে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে একসঙ্গে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টের মাধ্যমে বিক্ষোভকারীরা জনতাকে রাস্তায় নামার আহ্বান জানিয়েছেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বেসামরিক সরকারকে হটিয়ে সেনাবাহিনী মিয়ানমারের ক্ষমতা দখল করে। নির্বাচিত নেত্রী সু চি ও এনএলডির অধিকাংশ নেতাকে হয় কারাগারে না হয় বাড়িতে বন্দি করে রেখেছে সেনাবাহিনী। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২ হাজারের বেশি মানুষকে।

অভ্যুত্থানের পর থেকেই মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এ পর্যন্ত সেনা সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ৭০ জনেরও বেশি প্রাণ হারিয়েছেন।

এর আগে, ১৯৮৮ এবং ২০০৭ সালে দেশটির কয়েক দশকব্যাপী সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে অনেক মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল।

১৯৮৮ সালের বিক্ষোভে কমপক্ষে ৩ হাজার বিক্ষোভকারী মারা যান, আর ২০০৭ সালে মারা গিয়েছিলেন ৩০ জন। দুই ঘটনাতেই হাজার হাজার মানুষকে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

নিউজটি শেয়ার করে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © 2019-2020 । দৈনিক আজকের সংবাদ
Design and Developed by ThemesBazar.Com
SheraWeb.Com_2580