সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৯:১৯ অপরাহ্ন

Covid 19 নিয়ে এই মুহূর্তে সবচাইতে আলোচিত Lancet report

নিউজ ডেক্স:
  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬০৯ পাঠক পড়েছে
Lancet পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ Science Journal. এটি New York থেকে প্রকাশ হয়। Covid সংক্রান্ত বহু বহু তথ্য এখানে নিয়মিত প্রকাশ হয়। সারা পৃথিবীর সব দেশ, WHO, UNICEF ইত্যাদি সবাই Lancet report কে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখে। 12 April 2021 এর এই report এ বহু বহু তথ্য দিয়ে প্রমাণ করা হয়েছে, যে Covid19 বায়ু দ্বারা সংক্রামিত হয়। অন্য কোনো ভাবেই নয়। প্রসঙ্গত বলা উচিৎ, July 2020 এর এই Lancet journal এই 22 টি দেশের প্রায় 223 জন বিখ্যাত বিজ্ঞানী (যাঁদের মধ্যে 45 জন নোবেলজয়ী) জানিয়েছিলেন যে Covid নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি সম্ভবতঃ ভুল পথে যাচ্ছে। Lock down, Sanitization এসব করে এই Super spread রোখা যাবেনা। এতে বিপর্যয় বাড়বে। তখন এটা প্রমাণ করার মতন Data তাঁরা পাননি, এটা একটা hypothesis ছিল। এখন বিশাল তথ্য, data দিয়ে আরো বহু বিজ্ঞানী এটা প্রমাণ করেছেন। যাঁদের আগ্রহ আছে Duck Duck Go বা Google করে এই reprt পড়তে পারেন। খুব সহজবোধ্য ভাবে বোঝানো হয়েছে। এর কিছু অংশ 1. Covid রোগ কোনমতেই হাঁচি, কাশি, কফ, থুতু দিয়ে ছড়ায় না। 2. এটি পোষাক, জুতো, আসবাবপত্র, ধাতু, চামড়া এসব দিয়ে ছড়ায় না। 3. রুগীর ব্যবহার করা কোনো জিনিস এর স্পর্শে এই রোগ ছড়ায় না। 4. যানবাহন এর হাতল, সিঁড়ি এসবের মাধ্যমে ছড়ায় না। 5. এই জীবাণু ছড়ায় রোগীর কথা, নিঃস্বাস বায়ু, হাসি, চিৎকার এমনকি গান থেকেও। জীবাণু বাতাসে মেশে এবং বাতাসে বহুক্ষণ সক্রিয় থাকে। 6. যেহেতু বৃহৎ অংশের রোগীর কোনোরকম symptom থাকেনা বা খুব হালকা symptom থাকে, তাই এই আপাত সুস্থ রোগীরাই বেশিরভাগ রোগ ছড়ায়। বাস্তবে যত Covid রোগী পাওয়া গেছে তার 52% মতন রোগীর উৎস উপসর্গ হীন (Asymptomatic) রোগী। 7. ঘরের বাইরে থেকে ঘরের ভিতরে রোগ হবার সম্ভাবনা বহু গুণ বেশী এবং সে রোগ ভয়াবহ হবার সম্ভাবনা ও ঘরেই অনেক বেশি। 8. বারবার হাত ধুয়ে, sanitizer ব্যবহার করে, বাইরে থেকে ফিরেই জামাকাপড় sanitize করলে কোনোই লাভ নেই। 9. নিঃসন্দেহে প্রমাণিত যাঁরা বাইরে ঘুরেছেন তাঁদের চেয়ে যাঁরা ঘরে বদ্ধ থেকেছেন, তাঁদের রোগ হয়েছে বহুগুণ বেশী, এমনকি ভেন্টিলেটর এর প্রয়োজন বা মৃত্যু ও হয়েছে তাঁদের অনেক গুন বেশি। বাস্তবে মৃতদের প্রায় 86% ই ঘরে বদ্ধ ছিলেন। এই গৃহবন্দী নিয়ে report এ বহু detail আছে। বলা হয়েছে ঘরের থেকে রাস্তা, বড় বাগান, জঙ্গল, নদী এসব এলাকা বহুগুন ভালো। এমনকি ঘরের থেকে Shopping mall ও ভালো বলা হয়েছে, কারণ সেখানে জায়গা অনেক বেশি, তাই বাতাসে জীবাণুর ঘনত্ব কম। 10. ঘরের থেকে school, college অনেক অনেক safe প্রমাণ করা হয়েছে। Lancet report তাই সারা বিশ্বে বিশেষ করে ভারত, বাংলাদেশ, চীন এসব ঘন বসতিপূর্ন দেশে অবিলম্বে শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের Vaccine দিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু করতে বলা হয়েছে। এতে শিক্ষার উন্নতির সাথে শিশু কিশোরদের Covid হবার সম্ভাবনা ও অনেক কমে যাবে। 11. লক ডাউন এই রোগ নিয়ন্ত্রণে কোনো উপকারী তো নয় ই, বরং দীর্ঘদিন ঘরে বন্দী থেকে শহর এলাকায় এই রোগ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে। এই ঘরে আবদ্ধ দশা না কাটালে সামনে ভয়াবহ রূপ দেখা যাবে, যা এখনো কল্পনার বাইরে। 12. ঘরে থাকার সময় দরজা জানালা যত বেশী সম্ভব খোলা রাখতেই হবে। বাড়ীর ভিতরে হাওয়া চলাচল না হলে সে বাড়ী ত্যাগ করাই শ্রেয়। কারণ এই রোগ অন্তঃত আরো 12-15 বছর থাকবেই। 13. 16 বছরের বেশি সবাইকে Vaccine নিতে হবে, দ্রুত আরো কম বয়সের শিশুদের এই vaccine এর আওতায় আনতে হবে। 14. ঘন বসতি পূর্ন শহরে এই রোগ অতিমাত্রায় ক্ষতিকর থাকবেই। আধা শহর বা গ্রামে এই রোগ অল্পদিনেই নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। 15. বলা হয়েছে, প্রত্যেকের নিজের পাশের 500 মিটার Radius এ কোন রোগী থাকলে এই রোগ হবার সম্ভাবনা প্রচুর। বলাই বাহুল্য, বড় শহরে একজনের 500 মিটার radius এ যত মানুষ থাকেন, একটা গোটা গ্রামে তত মানুষ পাওয়া যাবেনা। 16. দেখা গেছে একজনের বাড়ীর 7 টা বাড়ী পরে অন্যজনের Covid থেকে, ওই ব্যক্তির রোগ ছড়িয়েছে। এরকম উদাহরণ লক্ষ লক্ষ। বাড়ীর দেওয়াল, দরজা চোর আটকাতে পারলেও Rna virus আটকাতে পারেনা। আর বদ্ধ ঘরে বাতাসে জীবনূর ঘনত্ব অনেক গুণ বেশী হয়, তাই রোগ ভয়াবহ হয়। 17. দিনের বেশিরভাগ সময় বাইরে থাকুন, পারলে মাঝে মাঝেই একটু ফাঁকা জায়গা, গ্রাম, এসব এলাকায় যান। Lungs এর জীবাণু কমে যাবে। পারলে ঘন জনবসতি এলাকা ছেড়ে একটু আধা শহর এলাকায় বসবাস করুন। ইউরোপ, আমেরিকায় শহরে বাড়ী বিক্রি করার ধুম পরে গেছে। সবাই গ্রাম (ওরা বলে county side) এলাকায় বাড়ী খুঁজছে।

নিউজটি শেয়ার করে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © 2019-2020 । দৈনিক আজকের সংবাদ
Design and Developed by ThemesBazar.Com
SheraWeb.Com_2580